⭆যৌন ও স্ত্রীরোগের স্থায়ী, আধুনিক ও সফল হোমিওপ্যাথিক চিকিত্সা⭅
পুরুষদের যৌন দুর্বলতা, দ্রুত বীর্যপাত, পুরুষত্বহীনতা, ধ্বজভঙ্গ, অতিরিক্ত স্বপ্নদোষ, স্পারম্যাটোরিয়া, হস্তমৈথুন অভ্যাস ও এর কুফল, লিঙ্গের অসারতা, সিফিলিস, গনোরিয়া ইত্যাদি, নারীদের জরায়ু সংক্রান্ত ব্যাধি, স্তন টিউমার/ক্যান্সার, বন্ধ্যাত্ব ও অন্যান্য স্ত্রীরোগসমূহের আধুনিক ও সফল হোমিওপ্যাথি চিকিত্সা।
যোগাযোগ: ডাক্তার আবুল হাসান; ডি. এইচ. এম. এস (বি. এইচ. এম. সি), ১০৬ দক্ষিন যাত্রাবাড়ী, শহীদ ফারুক রোড, ঢাকা ১২০৪,
ফোন : ০১৭২৭-৩৮২৬৭১, ০১৯২২-৪৩৭৪৩৫

যে খাবার গুলি আপনার পুরুষত্ব কে ধরে রাখবে

আপনিও লাইক দিন !

বর্তমান যুগে বেশীর ভাগ পুরুষের মধ্যে একটা সমস্যা বেশ প্রকট হয়ে উঠছে৷ দিন যত যাচ্ছে পুরুষের মধ্যে নৃপুংসকতা বৃদ্ধি পাচ্ছে৷ বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে পুরুষের যৌণ ইচ্ছা ক্রমশঃ কমে যাচ্ছে সেই সাথে দেখা দিচ্ছে পুরুষাঙ্গের উত্থান ও সাইজ জনিত যতসব সমস্যা৷ কাজেই আপনার যৌন চাহিদা কমে যাওয়ার ও অনান্য সমস্যা দেখা দেওয়ার আগেই আপনি সচেতন হয়ে যান৷
কেবল নিয়ন্ত্রিত জীবন যাপন ও ব্যায়াম করাই নয়, একজন সুস্থ ও সক্ষম পুরুষ হতে চাইলে লক্ষ্য রাখতে হবে খাবারের দিকেও। আসুন, জেনে নেই এমন কিছু খাবারের কথা যেগুলো একজন পুরুষকে রাখে সুস্থ ও সক্ষম।

১. টমেটো :-
পুরুষের সুস্থতা এবং দক্ষতা বজায় রাখতে টমেটো একটি বেশ উপকারী খাবার কেননা এতে বেশ কিছু গুণাগুণ রয়েছেন টমেটোতে থাকা লাইকোপেন কোলোরেক্টাল ক্যান্সার, প্রস্টেট ক্যান্সার, হার্টের বিভিন্ন অসুখ এবং অতিরিক্ত কোলেস্টরেল নির্মূল করে ফেলে ফলে পুরুষেরা শারীরিকভাবে সুস্থ থাকে।

২. শস্যদানা :-
বিভিন্ন ধরনের শস্য দানাতে ভিটামিন, মিনারেল এবং ফাইবার রয়েছে যেগুলো একজন পুরুষের দেহের প্রয়োজনীয় চাহিদা পূরণ করে থাকে। বাদামি ভাতে রয়েছে ভিটামিন বি, যা শরীরে এনার্জি উৎপাদনে সহায়তা করে থাকে। ফলে এই খাবারটি পুরুষের শারীরিক শক্তি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।

৩. রসুন :-
পুরুষের শারীরিক শক্তি বৃদ্ধিতে রসুন বেশ কার্যকর ভূমিকা রাখে। কেননা এতে থাকা বিভিন্ন উপাদান শরীরের অতিরিক্ত কোলেস্টরল কমিয়ে আনতে সহায়তা করে।

৪. স্যামন মাছ :-
প্রোটিন এবং ওমেগা ৩-ফ্যাটি অ্যাসিড এর উৎকৃষ্ট উৎস হল এই স্যামন মাছ যেটি রক্তে কোলেস্টরেল এর মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। এছাড়া এটি হার্টের বিভিন্ন সমস্যা, কোলোরেক্টাল ক্যান্সার, প্রোস্টেট ক্যান্সার এবং বিভিন্ন ধরনের মানসিক অস্থিরতা দূর করতে সহায়তা করে এই স্যামন মাছ। তাই প্রতিটি পুরুষের শারীরিক এবং মানসিক বিকাশে এই মাছটি অবশ্যই খাওয়া প্রয়োজন।

৫. পেঁয়াজ :-
কাম-উত্তেজক ও কামনা বৃদ্ধিকারী হিসাবে পেঁয়াজ বহুদিন থেকেই ব্যবহূত হয়ে আসছে৷ কিন্তু এটি কিভাবে এই বিষয়ে কার্যকরী তা এখন পর্যন্ত সঠিক ভাবে জানা যায় নি৷ সাদা পেঁয়াজ পিষে নিয়ে তাকে মাখনের মধ্যে ভালো করে ভেঁজে নিয়ে তা প্রতিদিন মধুর সঙ্গে খেলে তা থেকে উপকার পাওয়া যায়৷ কিন্তু একটি বিষয় মনে রাখবেন, এটি খাওয়ার আগে ঘণ্টা দুয়েক সময় আপনার পেট খালি রাখবেন৷ এইভাবে প্রতিদিন খেলে স্খলন, শীঘ্রপতন বা ঘুমের মধ্যে অতিরিক্ত ধাতুপতন (যাকে এক কথায় spermatorrhea বা স্বপ্নদোষ বলা হয়) ইত্যাদি সমস্যার সমাধান হওয়া সম্ভব৷ এছাড়া পেঁয়াজের রসের সঙ্গে কালো খোসা সমেত বিউলির ডালের গুঁড়ো সাত দিন পর্যন্ত ভিজিয়ে রেখে তাকে শুকিয়ে নিন৷ এইটির নিয়মিত ব্যবহার আপনার কাম-উত্তেজনা বজায় রাখবে এবং শারীরিক মিলনকালীন সুদৃঢ়তা বজায় রাখবে৷

৬. ডিম :-
ডিমে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন এবং আয়রন আছে যা একজন পুরুষের দেহের শারীরিক বিকাশে সহায়তা করে থাকে। অনেক পুরুষ রয়েছে যাদের অল্প বয়সে অতিরিক্ত চুল পড়ে যায়। এই অস্বাভাবিক চুল পড়া রোধে ডিম বেশ কার্যকরী খাদ্য।

৭. গাজর :-
150গ্রাম গাজর কুঁচি এক টেবিল চামচ মধু এবং হাফ-বয়েল ডিমের সঙ্গে মিশিয়ে দুমাস খেলে আপনার শারীরিক ও যৌন অক্ষমতা কম হতে পারে৷ কাজেই এখন আর দুশ্চিন্তা করবেন না৷ সমস্যার একেবারে প্রথম ধাপে আপনি বাড়িতে এই পদ্ধতি গুলি মেনে চলে দেখুন হয়ত প্রাথমিক ধাপে এই সমস্যার সমাধান হতে পারে৷ তাই আপনার খাদ্য তালিকায় উপরিউক্ত খাবার গুলো রাখুন এবং নিয়মিত গ্রহণ করুন। সুস্থ থাকুন। 

No comments:
Write comments
Recommended Posts × +